রবিবার, ০১ নভেম্বর ২০২০, ০৬:২৪ পূর্বাহ্ন

শিরোনামঃ
সিরাজগঞ্জে মা ইলিশ রক্ষা অভিযানে যমুনা নদীতে মোবাইল কোর্টে ০৪ জেলের জেল সিরাজগঞ্জে ৫ পুুুুলিশের পদোন্নতির র‍্যাংক ব্যাজ পরিয়ে দিলেন -পুলিশ সুপার কাপাসিয়ায় কমিউনিটি পুলিশিং ডে উপলক্ষ্যে আলোচনা ও মতবিনিময় সভা মধুপুরে কমিউনিটি পুলিশিং ডে উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত সিরাজগঞ্জ সদর থানার আয়োজনে উৎযাপিত হল কমিউনিটি পুলিশিং ডে-২০২০ কাজিপুরে কমিউনিটি পুলিশিং ডে-২০২০ উৎযাপিত সিরাজগঞ্জের মুত্যাহুল নিজামিয়া হাফিজীয়া মাদ্রার দানের ছাগল বিক্রি করে টাকা আত্তসাতের অভিযোগ নাগরপুরে কমিউনিটি পুলিশিং ডে ২০২০ উদযাপন ইতালী আওয়ামী লীগ নেতা সাইদুর রহমানের খালার ইন্তেকাল কাজিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে স্বাস্থ্য পরীক্ষার বিলের টাকার সিংহভাগ নয়ছয় হওয়ার অভিযোগ
অস্তিত্ব সংকটে ২০ দলীয় জোট

অস্তিত্ব সংকটে ২০ দলীয় জোট

দেশে করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় সরকারি দল আওয়ামী লীগ যখন নানামুখী উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডে ব্যস্ত, ঠিক সেই মুহূর্তে সকল সাংগঠনিক কার্যক্রম বন্ধ রেখে নিজ নিজ ঘরে অবস্থান করছে বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট নেতারা। ফলে একদিকে যেমন সাংগঠনিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়েছে জোট। অপরদিকে জনকল্যাণের সাথে সম্পৃক্ততা না থাকায়, জনগণও তাদের দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন। এই অবস্থায় ধীরে ধীরে অস্তিত্ব সংকটের মুখে ২০ দলীয় জোট।

২০ দলীয় জোট সূত্রে জানা গেছে, করোনা পরিস্থিতিতে মূলত ২০ দলীয় জোটের প্রধান শরিক দল বিএনপিই নিষ্ক্রিয়। এ বিষয়ে ২০ দলীয় জোটের মধ্যে কোনো সমন্বয় বা আলোচনা হয়নি।

জোট নেতারা বলেন, ২০ দলীয় জোটকে শুধু রাজনৈতিক কাজে বা নির্বাচনের সময় লাগে বিএনপির। তাছাড়া কোনো কার্যক্রমেই ২০ দলকে সম্পৃক্ত করা হয় না। শুধুমাত্র দলীয় স্বার্থে ২০ দলকে ব্যবহার করা হয়।

তারা আরো বলেন, ২০ দলীয় জোটের নেতৃত্ব দিচ্ছে বিএনপি। করোনা পরিস্থিতিতে তারা ঘোষণা দিয়েই ১৫ জুন পর্যন্ত সকল সাংগঠনিক কার্যক্রম স্থগিত রেখেছে। দেশের এই সংকটকালে তাদের উচিত ছিল একটা জোট সভা ডেকে এ বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা। কিন্তু তা তারা করেনি। পত্রপত্রিকায় শুনেছি তারা করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্য সহযোগিতা করেছে এর বাইরে কিছু আমরা জানি না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জোটের নীতি নির্ধারণী পর্যায়ের একজন নেতার বলেন, ২০ দলীয় জোট শুধুমাত্র একটি রাজনৈতিক নাম। এ জোট হয়েছে রাজনৈতিকভাবে ফায়দা লুটার জন্য। তিনি আরো বলেন, এই জোটের নেতারা বিএনপিতে যোগ দিয়েছে শুধুমাত্র নমিনেশন নিয়ে এমপি হওয়ার আশায়। অপরদিকে বিএনপিও তাদেরকে ব্যবহার করে শুধুমাত্র রাজনৈতিকভাবে ফায়দা লুটার জন্য।

জানতে চাইলে কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইব্রাহিম বীরপ্রতীক বলেন, বিএনপির বিষয়ে এই মুহূর্তে আমি কোনো মন্তব্য করতে চাই না। এখন করোনার সময়, কিভাবে এ পরিস্থিতি থেকে মুক্ত হওয়া যায় সেই চিন্তায় করছি।

ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ বলেন, যেহেতু বিএনপি জোটের নেতৃত্ব দিচ্ছে, করোনাকালে কিভাবে এই সংকট মোকাবিলা করা যায় বিএনপি এ বিষয়ে একটা আলোচনার উদ্যোগ নিতে পারত। কিন্তু তারা সেটি করেনি।

বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান বলেন, এখন তো কোনো কর্মসূচি নেই। কোনো কার্যক্রম নেই। তাই বিএনপিও ডাকার প্রয়োজন বোধ করেনি। আমরা আমাদের মতো করে যতটুকু সম্ভব জনগণকে সাহায্য-সহযোগিতা করার চেষ্টা করছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

© All rights reserved
Design & Developed BY RSK HOST