বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ ২০২১, ০৬:৩২ অপরাহ্ন

শিরোনামঃ
চৌহালীতে ইউনিয়ন আ’লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম এর ইন্তেকাল তাড়াশে ড্রাম ট্রাকের চাপায় প্রাণ হারালেন চালক নাগরপুরে ৭ ও ২৬ মার্চ উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতিসভা সলঙ্গায়  সিজদারত অবস্থায় এক মুসল্লির মৃত্যু চৌহালীতে ইউনিয়ন আ’লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত চৌহালীতে ঘোরজান ইউনিয়ন ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার জন্মদিন উপলক্ষে নাগরপুরে কেক কাটা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত সিরাজগঞ্জে গ্রাম আদালতের মাধ্যমে ১৫ টি ইউনিয়নে পুরাতন মোটরসাইকেল হস্তান্তর যাত্রী বাহী বাসে অজ্ঞান এক মহিলার পাশে দাড়ায় প্রত্যয় ব্লাড ডোনেশন

বিনা চিকিৎসায় মারা গেলেন মালায়েশিয়ায় কর্মরত শাহজাদপুরের যুবক

সেলিম রেজা শাহজাদপুর  প্রতিনিধি:

 

ভাগ্যের কি নির্মম পরিহাস! পরিবারের স্বচ্ছতা ফেরাতে বিদেশ গিয়ে লাশ হয়ে ফিরলেন শাহজাদপুরের সাইদুল ইসলাম (২৬)। বুক ভরা স্বপ্ন নিয়ে ২০১৪ সালে মালয়েশিয়া পাড়ি জমান সিরাজগঞ্জে শাহজাদপুর উপজেলা খুকনী নতুন পাড়া গ্রামের মোঃ আব্দুল আউয়ালের ছেলে সাইদুল ইসলাম। আশা ছিল বিদেশি মুদ্রায় কপাল ফিরবে পরিবারের। কিন্তু ভাগ্যের পরিহাসে আত্মীয় পরিবারহীন বিদেশের মাটিতে লাশ হয়ে ফিরলেন তিনি। এদিকর পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী ব্যক্তি ছিল সাইদুল। পরিবারের স্বচ্ছলতা ফেরাতেই মালায়েশিয়া তোজোটিয় ইম্পিয়ান বিলাস মনোফ কিয়ারায় কর্মরত ছিলেন তিনি। পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত ৬ জানুয়ারি গ্যাসফোম করেন সাইদুল। এনজিওগ্রাম করার পর জানা যায় স্টোক হয়েছিল তার। আত্মীয় স্বজন না থাকায় সেখানে চিকিৎসা করানোরও কেউ ছিল না তার। মৃত্যুর আগে বাবা-মাকে ফোন করে বলেছিলেন টাকা পাঠাতে, জানিয়ে ছিলেন দেশে আসার আকুতি। ছেলের যন্ত্রনা কষ্ট সহ্য করতে না পেরে ৬০ হাজার টাকাও পাঠিয়ে ছিলেন পিতা। টাকা পেয়ে বিমানের টিকিট করেছিলেন দেশে ফেরার। ১৩ তারিখে ফ্লাইটও ছিল তার। কিন্তু ভাগ্য তার সহায় হয় নি। ৯ তারিখে মৃত্যুবরণ করেন তিনি। মৃত্যুর পর লাশ কারখানা থেকে বের করে খোলা জায়গায় ফেলে রাখা হয়। এমনকি কারখানা থেকে অস্বীকার করা হয় তাদের ওখানে চাকরির কথা।
এদিকে সাইদুলের লাশ শনিবার সকালে বাড়িতে আসার পর কান্নায় ভেঙে পড়ে পরিবারের লোকজন। এমন টকবগে যুবকের বীনা চিকিৎসায় করুণ মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।
সাইদুলে বাবা-মা কান্নায় ভেঙে পড়ে আহাজারি করে জানান, এভাবে বিদেশের মাটিতে বিনা চিকিৎসায় যেন কারো সন্তান হারাতে না হয়। মালয়েশিয়াতে আমাদের আত্মীয়-স্বজন থাকা সত্ত্বেও চাকরি হারানোর ভয়ে কেউ কাছে আসতে পারে নাই ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

© All rights reserved
error: Alert: Content is protected by Frilix Group