সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১, ০৬:৪৬ অপরাহ্ন

চুরির আপবাদে মাদ্রাসা ছাত্রকে নির্যাতনের অভিযোগে কওমি শিক্ষক আটক

শাহরিয়ার মোরশে,সলঙ্গায় প্রতিনিধি:

সিরাজগঞ্জ‌ের সলঙ্গায় চরিয়া শিকার পাটধারী নুরানি কওমি হাফিজিয়া মাদ্রাসায় চুরির আপবাদে হাফিজুর রহমান নামের নয় বছরের শিশুকে পাষবিক নির্যাতনের ঘটনায় মাদ্রাসা শিক্ষক এরশাদুল ইসলামকে আটক করেছে সলঙ্গা থানা পুলিশ । জানাযায় , সলঙ্গা থানার হাটিকুমরুল ইউনিয়নের চরিয়া শিকার পাটধারী নুরানি কওমী হাফিজিয়া মাদ্রাসায় লাঙ্গল মোড়া গ্রামের হামিদুল ইসলামের নয় বছরের শিশু সেরাজুল ইসলামকে হেফজ বিভাগে ভর্তি করান । 28/02/20 ইং তারিখে মাদ্রাসা শিক্ষক এরশাদুল ইসলাম সেরাজুল(9) কে মারধর ও বেত দিয়ে পায়ের উরু এবং হাতে জখম করে দেয় । পরে শিশুটির মামা হাবিবুর রহমান খবর পেয়ে শিশুটিকে উদ্ধার করে হাটিকুমরুল সাকাওয়াত এইচ মেমোরিয়াল হাসপাতালে ভর্তি করান ।
তখন বিষয়টি বেগতিক দেখে শিশুটিকে চুরির অপবাদ দেয় এরশাদুল ইসলাম ।
শিশু সেরাজুলের মামা ও মা অত্র মাদ্রাসার সভাপতি জুয়েল রানা ও ‌স্থানীয় চেয়ারম্যান হেদায়েতুল আলম রেজাকে অবহিত করলে তারা শালিশে বিচার দেবেন বলে শিশুটিকে চিকিৎসা করাতে বলেন । এবং থানায় না যেতে ভয় ভীতি প্রদর্শন করেন । সলঙ্গা থানা পুলিশ খবর পেয়ে শিক্ষক এরশাদুল ইসলামকে আটক করেছে । এ বিষয়ে মাদ্রাসার সভাপতি জুয়েল রানা বলেন বিষয়টি মিমাংসার চেষ্টা করছি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের বিষয় আপনারা নিউজ না করলেই ভালো হয় । শিশুটির মামা হাবিবুর রহমান বলেন আমরা মামলা করিনি বিষয়টি চেয়ারম্যান ও সভাপতি মিমাংসার আশ্বাস দিয়েছেন ।
এ বিষয়ে সলঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ( ওসি ) আব্দুল কাদের জিলানী বলেন শিশুটি কেম বাঁশের কন্চি দিয়ে পাশবিক ভাবে নির্যাতন করেছে খবর পেয়েই শিশুটিকে দেখে অভিযুক্ত মাদ্রাসা শিক্ষক এরশাদুল কে আটক করে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে । তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে । শিশুটির চিকিৎসা চলছে ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

© All rights reserved
error: Alert: Content is protected by Frilix Group