শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৩৪ পূর্বাহ্ন

শিরোনামঃ
চলতি মাসেই চালু হবে সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস ট্রেন-রেলমন্ত্রী সিরাজগঞ্জে ইলিশ সম্পদ উন্নয়ন ও ব্যবস্থাপনা প্রকল্পের আওতায় জেলা পর্যায়ের সেমিনার অনুষ্ঠিত বিশ্বনাথে ‘স্বপ্ন’র যাত্রা শুরু সলঙ্গায় সড়ক দুর্ঘটনায় এক পথচারীর মৃত্যু আওয়ামীলীগ বাংলাদেশের রাজনীতিতে সবসময়ই অত্যন্ত শক্তিশালী ও গুরুত্বপূর্ণ দল -কৃষিমন্ত্রী বিশ্বনাথে সাজাপ্রাপ্ত আসামি সুহেল গ্রেফতার বেলকুচিতে সরকারি জমি দখল করে অবৈধভাবে দোকান নির্মাণ কাজিপুরে বন্যায় রোপা আমন ধান তলিয়ে জাওয়ায় ১৩ হাজার ৩৭১ কৃষের কপালে ভাজ বিশ্বনাথে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত – ১ উল্লাপাড়ায় ট্রাকচাপায় কলেজ ছাত্রসহ নিহত ২

বেলকুচিতে জমি অধিগ্রহণের টাকা না পাওয়ায় বিক্ষোভ

সবুজ সরকার, বেলকুচি সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি:

সিরাজগঞ্জের বেলকুচি পৌর এলাকায় ওয়াটার প্লাণ ট্রিটমেন্ট স্থাপনের জন্য জমি অধিগ্রহণের টাকা না পাওয়ায় বিক্ষোভ ও মমানববন্দন করেছে জমির মালিকরা।

গত ১৯৮৩ সালে সরকার সোহাগপুর হাটের জন্য বেশকিছু পরিবারের কাছ থেকে জমি অধিগ্রহন করে। কিন্তু এখনো অধিগ্রহনের জমির মূল্যে পায়নি মালিকরা। সেই অধিগ্রহন জমিতে অর্থ পরিশোধ না করেই বেলকুচি পৌরসভার উন্নয়নের জন্য ওয়াটার প্লাণ ট্রিটমেন্ট স্থাপন করছে পৌর কর্তৃপক্ষ।

অধিগ্রহণকৃত সেই জমির ক্ষতিপূরণের দাবিতে শনিবার (১১ সেপ্টেম্বর) বেলকুচি পৌর এলাকার মুকুন্দগাতীসস্থ বঙ্গবন্ধু স্কয়ারের সামনে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে ক্ষতিগ্রস্তরা। বিক্ষোভ ও মানববন্ধন চলা কালিন সিরাজগঞ্জ-৫ (বেলকুচি-চৌহালী) আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য আলহাজ আব্দুল মমিন মন্ডল বিক্ষোভ কারীদের জমির মূল্যে পরিশোদের আশ্বাস্থ করে।

এ সময় বিক্ষোভ কারীরা শান্ত হয়ে চলে যায়। বেলকুচি পৌরসভা সূত্র জানা যায়, বেলকুচি পৌর উন্নয়ন ও বিশুদ্ধ পানি সরবারহের জন্য সাবেক মেয়র বেগম আশানূর বিশ্বাস ওয়াটার প্লাণ ট্রিটমেন্ট স্থাপনের জন্য সরকারের কাছে আবেদন করেন। সেই আবেদনের ভিত্তিতে ওয়াটার প্লান ট্রিটমেন্ট স্থাপনের জন্য সরকার ৫২ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়। গত ৩০ জুন মাননীয় এমপি মহাদয় ওয়াটার প্লাণ ট্রিটমেন্ট কাজের উদ্বোধন করেণ। ক্ষতিগ্রস্ত ভূমি মালিকেরা বলেন, পৌর কর্তৃপক্ষ তাদের উন্নয়নের জন্য ওয়াটার প্লাণ ট্রিটমেন্ট স্থাপন করছে। কিন্তু ক্ষতিপূরণের টাকা আমরা এখনও বুঝে পাইনি। বুঝে পাওয়ার জন্য সংশ্লিষ্টদের কাছে তাঁরা ধরনা দিচ্ছেন। কিন্তু কোনো কাজ হচ্ছে না। কবে টাকা বুঝে পাবেন, তার কোনো সুনির্দিষ্ট জবাবও কেউ দিচ্ছে না।

বেলকুচি পৌর মেয়র সাজ্জাদুল হক রেজা এই প্রতিবেদককে বলেন, ১৯৮৩ সালে সরকার জমিগুলো অধিগ্রহণ করে। জমিগুলো গত ৮ বছর পূর্বে বেলকুচি পৌর কর্তৃপক্ষকে বুঝে দেয়। সেই জমিতেই আমরা ওয়াটার প্লান ট্রিটমেন্ট স্থাপন কাজের উদ্বোধন করি। এছাড়া চলতি বছরের জুন মাসের ৩০ তারিখ সেই অধিগ্রহনকৃত জমিতে ৫২ কোটি টাকা ব্যায় নির্ধারন করে ওয়াটার প্লাণ ট্রিটমেন্ট স্থাপন কাজের উদ্বোধন করেণ আমাদের এমপি মহাদয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

© All rights reserved
error: Alert: Content is protected by Frilix Group