শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০২:৫২ অপরাহ্ন

শিরোনামঃ
উল্লাপাড়ায় দলীয় মেয়র প্রার্থী বাছাই প্রক্রিয়া অনুষ্ঠিত জাতীয় চলচিত্র পুরষ্কারে হ্যাট্টিক করলেন সিরাজগঞ্জের কৃতিসন্তান জাহিদ হাসান কাজিপুর মুক্ত দিবস উপলক্ষ্যে বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ সিরাজগঞ্জে ২৯তম আন্তর্জাতিক ২২তম জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবস পালন মধুপুরে নির্মাণ প্রকৌশল শ্রমিক ইউনিয়নের ত্রিবার্ষিক নির্বাচন নাগরপুরে ঔষধ ব্যবসায়ী আরিফের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ ফুলবাড়ীতে ভিক্ষুকদের মাঝে ছাগল বিতরণ সখিনা মােতাহার কল্যাণ ট্রাস্ট এর উদ্যোগে অটোভ্যান ও সেলাই মেশিন বিতরণ কাজিপুর পৌর মেয়রের মতবিনিময় সভা উল্লাপাড়ায় দুই মাদক সেবনকারীর  ভ্রাম্যমাণ আদালতে ১ মাসের কারাদণ্ড

ব্যস্ততা বেড়েছে নৌকা কারিগরদের

বরিশালসহ দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন জেলায় আষাঢ় মাস থেকে আশ্বিন মাস পর্যন্ত নৌকা বিক্রির ধুম পড়ে যায়। সদর উপজেলার কড়াপুর এবং নভগ্রাম রোড সড়কের পাশের বিভিন্ন খালে নৌকা বিক্রি হয়।

স্বরুপকাঠীর আটঘর, কুড়িয়ানা, ইন্দেরহাট ও মিয়ার হাটে নতুন তৈরি ছোট নৌকা বিক্রির হাট বসতে শুরু করেছে। বিভিন্ন ধরনের নৌকা বেচাকেনা এরই মধ্যে জমজমাট হয়ে উঠে। সর্বত্রই নৌকার কদর বেড়ে যাওয়ায় নৌকা তৈরির কারিগরদের এখন ব্যস্ততার কোনো শেষ নেই।

বরিশালের খাল-বিল, নদী-নালা বেষ্টিত এলাকা উজিরপুর, বানারীপাড়া ও আগৈলঝাড়ারর সাতলার বিভিন্ন ইউপির চলাচল ও ব্যবসা বাণিজ্যের একমাত্র বাহক নৌকা।

কৃষকদের কাছ থেকে ক্রয় করা সবজি, ধান কাটা, বাগান থেকে পেঁয়ারাসহ, বিভিন্ন জাতের ফসল সংগ্রহ এবং বাজারজাত করার কাজে এই বিল অঞ্চলে নৌকার বিকল্প নেই। আর এ বাড়তি চাহিদার যোগান দিতে নৌকা তৈরির কারিগররা দিন রাত শ্রম দিয়ে যাচ্ছেন।

বর্তমানে কাঠসহ নৌকা তৈরির উপকরণের অতিরিক্ত দাম বেড়ে যাওয়ার কারণে নৌকা তৈরিতে খরচও বেড়েছে। তবে সে তুলনায় হাট-বাজারগুলোতে ক্রেতাদের কাছে নৌকার দাম বাড়েনি বলে জানান কারিগররা।

নিজস্ব পুঁজি না থাকার কারণে দাদন ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে অগ্রীম টাকা নিয়ে উপকরণ কিনতে হয়। যে কারণে তারা তেমন দাম পায় না। দক্ষিণাঞ্চলের বৃহত্তম নৌকারহাট স্বরুপকাঠীর আটঘরসহ আশপাশের বিভিন্ন নৌকা বিক্রির হাটগুলো এখন ক্রেতা বিক্রেতা সমাগমে সরগরম হয়ে উঠেছে।

বর্ষা মৌসুমের শুরুতেই প্রতি বছরের ন্যায় বরিশালের উজিরপুর, আগৈলঝাড়ার, পিরোজপুরের স্বরুপকাঠী ও ঝালকাঠীসহ দক্ষিণাঞ্চলের নদী-নালা খালবিল বেষ্টিত এলাকায় নৌকার কদর বেড়ে গেছে। এতে নৌকা নির্ভর এলাকাগুলোতে প্রচুর নৌকার চাহিদা বেড়েছে।

আর এ বাড়তি চাহিদার যোগান দিতে জেলার নৌকা তৈরির কারিগররা দিন রাত শ্রম দিয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু কাঠ, লোহাসহ নৌকা তৈরির উপকরণের দাম বাড়লেও সে তুলনায় বাড়েনি নৌকার দাম।

তাছাড়া কারিগরদের নিজস্ব পূুঁজি না থাকায় দাদন ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে অগ্রিম টাকা নিয়ে উপকরণ কিনতে হয়। যে কারণে তারা কষ্টের তেমন দাম পায় না। তবুও তারা প্রতি হাটে তৈরি করা নৌকা নিয়ে হজির হয়। দক্ষিণাঞ্চলের বৃহত্তম নৌকারহাট আটঘর কুড়িয়ানাসহ আসপাশের বিভিন্ন নৌকা বিক্রির হাটগুলো এখন ক্রেতা বিক্রেতা সমাগমে সরগরম হয়ে উঠেছে।

প্রায় দু’শ বছরের পুরানো বরিশাল ও ঝালকাঠির সীমান্তবর্তী আটঘর নৌকা কেনা বেচার হাটে বিক্রির জন্য জেলা বিভিন্ন স্থান থেকে কারিগর এবং মৌসুমী ব্যবসায়ীরা নৌকা নিয়ে আসে ইঞ্জিনচালিত ট্রলার ও গাড়িতে করে। এখান থেকে এসব নৌকা যাচ্ছে বৃহত্তর বরিশাল এবং ফরিদপুরের প্রত্যন্ত অঞ্চলে। প্রতি মৌসুমে এ হাটে দেড়-দুই কোটি টাকার নৌকা বিক্রি হয় বলে ব্যবসায়ীরা জানান।

সংবাদটি শেয়ার করুন

© All rights reserved
error: Alert: Content is protected by Frilix Group