মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ০৮:৪৮ অপরাহ্ন

শিরোনামঃ
ফুলবাড়ী পৌর নির্বাচনে প্রার্থীদের মনোনয়ন পত্র দাখিল মধুপুরে যুবতীকে ধর্ষণ থানায় মামলা করায় বাদীকে হুমকী নাগরপুরে মহান বিজয় দিবস ২০২০ উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা মধুপুরে অজ্ঞাত শিশুটির তার নাম ঠিকানা বলতে না পারায় সমস্যায় অটোচালক ফুলবাড়ী পৌর নির্বাচনে নৌকার মাঝী খাজা ,ধানের শীষের প্রার্থী সাহাজুল সিরাজগঞ্জে দেশের সর্ববৃহৎ বঙ্গবন্ধু রেল সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা টাংগাইলে প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের অধিকার ফোরামের মানববন্ধন ও স্মারক লিপি প্রদান পৌর নির্বাচনে ফুলবাড়ীতে নৌকার প্রার্থী খাজা মঈন উদ্দিন চিশতি গভীর রাতে শীতার্তদের গায়ে কম্বল জড়িয়ে দিলেন ইউএনও সিরাজগঞ্জে আদালতের নির্দেশে ৭ বছর পর জমি দখল পেলেন গফুর গংরা

কারা হচ্ছেন কালিগঞ্জ বিএনপির কান্ডারী

আর. ফেরদৌস রনি, কালিগঞ্জ (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি:

 

 

সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলা বিএনপির কমিটি নিয়ে ধ্রুমজাল কাটছে না।চলছে বিভিন্ন লবিং, গ্রুপিং ও বিচার বিশ্লেষণ।চলছে কেন্দ্রীয় দুই নেতা ডা.শহিদুল আলম ও কাজী আলাউদ্দীন ছাড়াও জেলা আহবায়ক ইফতেখার আলীকে ম্যানেজের চেষ্টা।আহবায়ক পদে দুজনের নাম বেশ জোরেশোরে শোনা যাচ্ছে।একজন হলেন জেলা বিএনপির সাবেক সহ সভাপতি ও উপজেলা বিএনপির বর্তমান সভাপতি,সাবেক ধলবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান এ্যাড.শেখ আব্দুস সাত্তার।অপরজন হলেন উপজেলা বিএনপির বর্তমান সহ সভাপতি ও সদর কুশুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান শেখ এবাদুল ইসলাম।এ্যাড. সাত্তারের নামে প্রধানমন্ত্রীর গাড়িবহর হামলা মামলা সহ ‌২০ টির অধিক মামলা রয়েছে।তিনি বিভিন্ন রাজনৈতিক মামলায় কয়েকবার কারাবরন করেছেন।দলীয় সব কর্মসূচীতে অংশগ্রহণ না করলেও দীর্ঘ কয়েকবছর যাবৎ তিনি দলীয় নেতাকর্মীদের আদালতে সম্পূর্ণ ফ্রী আইনি সহায়তা দিয়ে আসছেন।আলোচিত বিএনপি নেতা এবাদুল ইসলামের নামেও রয়েছে অস্ত্র ও বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে ১টি রাজনৈতিক মামলা।এ মামলায় তিনি প্রায় একমাস কারাবরন করেছেন।তিনি বর্তমানে দলীয় কর্মসূচীতে অনেক বেশি সক্রিয় এবং দাপটের সাথে কর্মসূচী পালন করে চলেছেন।সদস্য সচিব পদে সবচেয়ে আলোচিত মুখ সাবেক এমপি শাহাদাৎ হোসেন পুত্র,উপজেলা বিএনপির বর্তমান যুগ্ম সম্পাদক,জাবি. আল বেরুনী হল শাখা ছাত্রদলের সাবেক জিএস,ভাড়াশিমলা ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আক্তারুজ্জামান বাপ্পি ও উপজেলা বিএনপির বর্তমান যুগ্ম সম্পাদক,উপজেলা যুবদলের দীর্ঘদিনের সভাপতি ডা.শফিকুল ইসলাম বাবু।বাপ্পির নামে ২০১৩ সালে একটি সহিংসতা মামলা হয়।তিনি বর্তমানে এ মামলা থেকে নিষ্কৃতি পেয়েছেন।ডা.বাবুর নামেও রয়েছে একটি রাজনৈতিক সহিংসতা মামলা।এ মামলায় তিনি মাসখানেক কারাবরন করেন।সদস্য সচিব পদে আরো তিনজনের নাম শোনা যাচ্ছে। একজন হলেন উপজেলা বিএনপির বর্তমান সহ সভাপতি ও দঃ শ্রীপুর ইউনিয়ন বিএনপি সভাপতি সিরাজুল ইসলাম বাবলু।তার নামেও ডজনখানেক রাজনৈতিক মামলা রয়েছে এবং তিনি একাধিকবার কারাবরন করে।আরো আলোচনায় আছেন উপজেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক, দঃ শ্রীপুর ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সভাপতি জুলফিকার আলী সাঁপুই ও উপজেলা বিএনপির বর্তমান ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম। জুলফিকার আলীর নামে ডজনখানেক ও জাহাঙ্গীরের নামে একটি রাজনৈতিক মামলা রয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

© All rights reserved
error: Alert: Content is protected by Frilix Group